Wednesday, March 25th, 2020




গুলশানের বাসায় পৌছেছেন খালেদা জিয়া

৭৭৬ দিন কারাভোগের পর মুক্তি পেয়ে গুলশানে নিজ বাসভবন ফিরোজায় পৌছেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

বুধবার (২৫ মার্চ) বিকাল ৩টা ৫ মিনিটে মুক্তি পাওয়ার পর বিএসএমএমইউ হাসপাতালের কেবিন থেকে ৪টা ২০মিনিটে গাড়িতে ওঠানো হয় খালেদা জিয়াকে। এসময় তার নিজের যে নিশান পেট্রোল গাড়িটি তাকে আনার জন্য গিয়েছিল সেই গাড়িটি অনেক উচু হওয়ায় তিনি উঠতে পারেননি। শারিরীকভাবে অসুস্থতার কারণে তিনি অপেক্ষাকৃত নীচু তার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দারের গাড়িতে বসেন। গাড়িটি ঠিক ৪টা ২৫মিনিটে বিএসএমএমইউ হাসপাতালের গেট থেকে বের হয়ে আসে। এসময় তার গাড়ির সামনে ও পেছনে হাজার হাজার দলীয় নেতাকর্মী স্লোগান দিতে থাকে। সেজন্য গাড়িটি হাসপাতালের গেট থেকে মেইন সড়কে আসতে বেশ কিছুক্ষণ সময় লাগে। এরপর গাড়ি চলতে শুরু করলেও হাজার হাজার নেতাকর্মীর ভীড়ের কারণে কম গতিতে গাড়িয়ে চালিয়ে গুলশানের দিকে রওয়ানা করেন। কাওরানা বাজার আসতেই আধাঘণ্টা লেগে যায়। ফার্মগেটের পর অবশ্য দ্রুতগতিতে চলতে পারে গাড়ি।

করোনা ভাইরাসের কারণে রাস্তায় গাড়ি কম থাকলেও দলীয় নেতাকর্মীদের কারণে প্রায় এক ঘন্টা পর ৫টা ১৫মিনিটে গুলশান ২ নম্বরের ৭৯ নম্বর সড়কের এক নম্বর বাড়ির সামনে পৌছে। সেখানেও আগে থেকে উপস্থিত ছিলেন কয়েক হাজার দলীয় নেতাকর্মী। কিন্তু খালেদা জিয়া কারও সঙ্গে কথা না বলে সরাসরি তার গাড়িটে বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করে।

গোলাপী রংয়ের শাড়ি পড়া খালেদা জিয়ার চোখে চিরাচিরত সানগ্লাসটিও ছিল। তিনি হুইল চেয়ার থেকে গাড়িতে বসেই বাসায় আসেন।

খালেদা জিয়াকে হাসপাতাল থেকে বাসায় আনার জন্য বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এজেড এম জাহিদ হোসেন, তার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার, ভাইয়ের স্ত্রী কানিজ ফাতিমা, ভাইয়ের ছেলে অভিক ইস্কান্দার, তারেক রহমানের স্ত্রীর বড় বোন শাহিনা জামান খান, বিএনপি নেতা হাবিব উন নবী খান সোহেল, মীর সরাফত আলী সপু, সাইফুল আলম নীরব, সুলতান সালাউদ্দীন টুকু, চেয়ারপারসনের পিএস আব্দুস সাত্তার, প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান, শামসুদ্দিন দিদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ

Advertisement