Wednesday, February 17th, 2021




আলজাজিরার প্রতিবেদন সরাতে দায়িত্বশীলরা পদক্ষেপ না নেওয়ায় আদালতের উষ্মা

‘অল দ্যা প্রাইম মিনিস্টার মেন’ শিরোনামে কাতারভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আলজাজিরায় প্রচারিত প্রতিবেদনটি ইউটিউব, টুইটার, ফেসবুকসহ সকল অনলাইন মাধ্যম থেকে সরাতে পদক্ষেপ নিতে বিটিআরসিকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার হাইকোর্ট বেঞ্চ বুধবার এ আদেশ দেন। বাংলাদেশে সম্প্রচার বন্ধ এবং আলজাজিরায় প্রচারিত প্রতিবেদন ইউটিউব, টুইটার, ফেইসবুকসহ সকল অনলাইন প্লাটফরম থেকে সরানোর নির্দেশনা চেয়ে করা রিট আবেদন নিষ্পত্তি করে এ আদেশ দেন হাইকোর্ট। আদালত বলেন, সংবাদটি গত পহেলা ফেব্রুয়ারি প্রচারিত হলেও তা অনলাইন প্লাটফরম থেকে সরাতে দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠান কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। তাই পরিস্থিতির আরো অবনতি হবার আগেই অবিলম্বে তা সরাতে নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে।

আদালত আদেশে বলেন, জনস্বার্থে এই রিট আবেদন করা হয়েছে, কিংবা কিভাবে তার মৌলিক অধিকার ক্ষুন্ন হয়েছে তা প্রমান করতে ব্যর্থ হয়েছেন রিট আবেদনকারী। তবে একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র, দেশের সমাজ ব্যবস্থা এবং দেশের ভাবমূর্তির কথা বিবেচনা করে আদালত তার বিশেষ ক্ষমতাবলে বিটিআরসির প্রতি এ আদেশ দিচ্ছে। আদালত বলেন, অ্যাটর্নি জেনারেল ও বিটিআরসির আইনজীবীর বক্তব্য থেকে এটা স্পস্ট যে, একটি দেশের গণতান্ত্রিক সরকারের ভাবমূর্তি ও মর্যাদা ক্ষুন্ন করে বা আঘাত করে এরূপ যেকোনো কন্টেন্ট আন্তর্জাতিক সোসাল মিডিয়া থেকে সরাতে বিটিআরসি প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে পারে।

আদালত অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিন, ৬ অ্যামিকাস কিউরি সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী ও ব্যারিস্টার ফিদা এম কামাল, অ্যাডভোকেট কামালুল আলম, সাবেক আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন খসরু, প্রবীর নিয়োগী ও ড. শাহদীন মালিক, রিট আবেদনকারী ব্যারিস্টার এম. এনামুল কবির ইমন এবং বিটিআরসির আইনজীবী ব্যারিস্টার খন্দকার রেজা-ই রাকিব এর বক্তব্য শুনে গতকাল এ আদেশ দেন।

গতকাল আদেশের আগে শুনানিতে অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিন বলেন, ওই প্রতিবেদনে বাংলাদেশকে একটি মাফিয়া রাষ্ট্র হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। যা অবমাননাকর। তাই এ রাষ্ট্রের যেকোনো নাগরিকই সংক্ষুব্ধ হয়ে রিট আবেদন করতে পারেন। তিনি বলেন, একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের সম্প্রচার বন্ধ হোক তা

আমি চাচ্ছি না। তবে দেশের সম্মানহানীকর কন্টেন্ট সরাতে বিটিআরসি পদক্ষেপ নিতে পারে। এই আদালত সেবিষয়ে আদেশ দিতে পারেন।

‘অল দ্যা প্রাইম মিনিস্টার মেন’ শিরোনামে গত পহেলা ফেব্রুয়ারি আলজাজিরায় একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এ অবস্থায় বাংলাদেশে আলজাজিরার সম্প্রচার বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার এম. এনামুল কবির ইমন গত ৮ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টে রিট আবেদন দাখিল করেন। রিট আবেদনে বাংলাদেশকে নিয়ে সম্প্রতি আলজাজিরায় প্রচারিত প্রতিবেদন ইউটিউব, টুইটার, ফেইসবুকসহ সকল অনলাইন প্লাটফরম থেকে সরানোর নির্দেশনা চাওয়া হয়। রিট আবেদনে ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব, তথ্য সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, বিটিআরসির চেয়ারম্যান, পুলিশের আইজিসহ সংশ্লিষ্টদেরকে বিবাদী করা হয়। এ রিট আবেদনের ওপর শুনানি নিয়ে গত ১০ ফেব্রুয়ারি আদালত সুপ্রিম কোর্টের ৬ সিনিয়র আইনজীবীকে অ্যামিকাস কিউরি হিসেবে নিয়োগ দেন হাইকোর্ট। বাংলাদেশে সম্প্রচার বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে দাখিল করা রিট আবেদন গ্রহণযোগ্য কীনা, একটি আন্তর্জাতিক মিডিয়ার সম্প্রচার বন্ধে আদেশ দিতে পারে কীনা সেবিষয়ে তাদের কাছ থেকে আইনি মতামত চান হাইকোর্ট। ওই ছয় আইনজীবী গত ১৫ ফেব্রুয়ারি তাদের অভিমত দিয়েছেন। এদের মধ্যে অধিকাংশ আইনজীবীই বলেন, রিট আবেদন করার আগে আলজাজিরা টিভি কর্তৃপক্ষকে আইনি নোটিশ না দেওয়ায় আইনগতভাবে এ রিট চলতে পারেনা। আর মাত্র একজন রিট আবেদনের পক্ষে অভিমত দেন।

‘অল দ্যা প্রাইম মিনিস্টার মেন’ শিরোনামে গত পহেলা ফেব্রুয়ারি আলজাজিরায় প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এরইমধ্যে এ প্রতিবেদন ভিত্তিহীন উল্লেখ করে পররাষ্ট্র, স্বরাষ্ট্র ও তথ্য মন্ত্রণালয়, আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর), পুলিশ সদর দপ্তর থেকে পৃথক পৃথক বিবৃতি দিয়ে প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। এছাড়া সরকারের বিভিন্ন মহল থেকেও প্রতিবাদ ও ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়েছে। বাংলাদেশের সাংবাদিক মহল থেকেও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) একাংশ বাংলাদেশে আলজাজিরার সম্প্রচার বন্ধের দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ