Thursday, September 17th, 2020




বেলারুশ প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ দাবি : নিরাপত্তা আইনে অভিযুক্ত বিরোধী নেত্রী

নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগে প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্দার লুকাশেঙ্কোর পদত্যাগ দাবিতে বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছে বেলারুশ। নিরাপত্তা বাহিনীর বাধা উপেক্ষা করে রীতিমতো জনসমুদ্রে পরিণত হয় দেশটির রাজধানী মিনস্ক। নির্বাচন বাতিলের দাবিতে সহিংস বিক্ষোভ শুরু করেছেন বিক্ষোভকারীরা। এরই মধ্যে দেশটির সরকারবিরোধী আন্দোলনের অন্যতম নেতা মারিয়া কোলেসনিকোভাকে জাতীয় নিরাপত্তা আইনের আওতায় অভিযুক্ত করা হয়েছে বলে বুধবার রাতে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

৯ আগস্ট দেশটিতে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হওয়ার পর থেকে বেলারুশিয়ান কো-অর্ডিনেশন কাউন্সিলের নির্বাহী কমিটির সদস্য মারিয়া কোলেসনিকোভা, প্রেস সেক্রেটারি অ্যান্তন রোদনেনকভ এবং এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি আইভান ক্রাভটসভ দেশটির সরকারবিরোধী আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়ে আসছিলেন। ইতোমধ্যে এদের সবাইকে ধরা নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন বিক্ষোভকারীরা।

আলেক্সান্দার লুকাশেঙ্কোরবিরোধী বিক্ষোভ দেখানোর সময়ই গত সপ্তাহে বিরোধীনেত্রী কোলেসনিকোভাকে অপহরণ করেছিল মুখোশধারীরা। তারা রাজধানী মিনস্ক থেকে তাকে সোজা নিয়ে যায় ইউক্রেনের সীমান্তে। জোর করে তাকে বেলারুশ থেকে ইউক্রেনে পাঠানোর চেষ্টা হয়। কিন্তু সেখানে নিজের পাসপোর্ট ছিঁড়ে ফেলে দেন এই সাহসিনী নেত্রী। ফলে তাকে আর জোর করে ইউক্রেন পাঠানো যায় নি। তখন কোলেসনিকোভাকে আটক করা হয়। এরপর বেলারুশে সরকারবিরোধী আন্দোলনে যুক্ত আরও এক বিরোধী নেতাকে তুলে নিয়ে যায় মুখোশধারীরা।
বিদ্রোহীদের অভিযোগ, গত ৯ আগস্ট নির্বাচনে কারচুপি করে ফের ক্ষমতা দখল করেছেন আলেকজান্ডার লুকাশেঙ্কো। তিনি এভাবে গত ২৬ বছর ধরে ক্ষমতায় আছেন। এদিকে, সমস্যা জর্জরিত প্রেসিডেন্ট লুকাশেঙ্কোর ক্ষমতায় থাকার সমর্থনে সম্প্রতি রাশিয়া সফর করেছেন। সেখানে তিনি দেশটির প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। আর সফরে আলেক্সান্দার লুকাশেঙ্কোর পুরস্কার হিসেবে পেলেন দেড় বিলিয়ন ডলার ঋণ।

এদিকে, বেলারুশের সাম্প্রতিক ঘটনাবলির পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য দেশ বেলারুশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির কথা বিবেচনা করছে। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী পম্পেও তার এক বিবৃতিতে বলেছেন, আমরা কোলেসনিকোভার এবং বেলারুশের জনগণের সাহসের প্রশংসা করি। তারা বেলারুশ সরকারের অযৌক্তিক সহিংসতা ও দমন-নিপীড়নের মুখে অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে তাদের নেতাদের বাছাই করার অধিকারের কথা শান্তিপূর্ণভাবে বলেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ