Thursday, September 17th, 2020




আবারও বার্সার স্কোয়াডে নেই সুয়ারেস

ক্যাম্প ন্যু ছাড়ার জল্পনাকে পাশ কাটিয়ে বার্সেলোনার স্কোয়াডে ফেরার কথা শোনা গেলেও শেষ পর্যন্ত জায়গা হলো না লুইস সুয়ারেসের। আজ বুধবার জিরোনার বিপক্ষে প্রাক-মৌসুম প্রস্তুতিমূলক ম্যাচের দলে ডাক পাননি এই উরুগুইয়ান স্ট্রাইকারসহ আর্তুরো ভিদাল, রাফিনহা। অথচ দলের সঙ্গেই অনুশীলন সেরেছেন তিনি।

গত শনিবার জিমনাস্তিক দে তারাগোনার বিপক্ষে সুয়ারেসকে ছাড়াই মাঠে নেমেছিল বার্সা। তবে দ্বিতীয় প্রীতি ম্যাচের আগে তাকে স্কোয়াডে অন্তর্ভুক্ত করার কথা শোনা গিয়েছিল। পরে জানা গেল তাকে বাদ দিয়েই দল সাজিয়েছেন নতুন কোচ রোনাল্ড কোম্যান। এদিকে বার্সায় সুয়ারেসের ভবিষ্যৎ এখনও অনিশ্চিত। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমগুলোর দাবি, এখনও একজন স্ট্রাইকার আনতে মরিয়া চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ক্লাব কর্তৃপক্ষ।

ইন্টার মিলানের লওতারো মার্তিনেস ও লিঁও অধিনায়ক মেম্ফিস ডিপের দিকেই নজর বার্সার। কিন্তু দুজনের দাম নিয়ে বনিবনা হচ্ছে না। শোনা যাচ্ছে, মার্তিনেস ইন্টার মিলান ছাড়বেন না। আর ডিপেকে কেনার আর্থিক সামর্থ্যই নাকি নেই বার্সার। মার্তিনেস কিংবা ডিপে যাকেই আনুক না কেন, আগে কাউকে বিক্রি করে অর্থ যোগাড় করতে হবে বার্সাকে। খোদ কোচ কোম্যান এমনটাই জানিয়েছেন। লিঁওর প্রেসিডেন্ট মিচেল ওলাস তো টুইট করেছেন, ডাচ উইঙ্গারকে কেনার মতো আর্থিক সামর্থ্য যে নেই তা নাকি খোদ বার্সা প্রেসিডেন্ট হোসে মারিয়া বার্তোমেউ তাকে বলেছেন।

মেসি-বিচ্ছেদ ঠেকানোর পর সবমিলিয়ে বার্সার মূল সমস্যা এখন সুয়ারেসকে ঘিরে। ৩৩ বছর বয়সী স্ট্রাইকারকে ভালো দামে বেচতে পারলেই কেবল নতুন কাউকে কেনা সম্ভব। কিন্তু ঝামেলা বেঁধেছে তার চুক্তি নিয়ে। চুক্তির মেয়াদ এক বছর বাকি থাকায় আগামী মৌসুমের জন্য যে বেতন তার প্রাপ্য তার পুরোটাই মিটিয়ে দিতে বলছেন তিনি। কিন্তু বার্সা তাতে রাজি হচ্ছে না।

সুয়ারেসকে কেনার ব্যাপারে শুরুতে আগ্রহ দেখিয়েছিল জুভেন্টাস। কিন্তু আমলাতান্ত্রিক ও চুক্তি সংক্রান্ত জটিলতা নাকি সেই সম্ভাবনা ভেস্তে দিয়েছে। বাকি ছিল অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ। কিন্তু সেখান থেকেও ভালো কোনো প্রস্তাব আসেনি। ফলে ক্যাম্প ন্যুয়ে তার থেকে যাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

এদিকে দায়িত্ব নেওয়ার পর সুয়ারেসকে বাইরের দরজা দেখিয়ে দিয়েছিলেন কোম্যান। ডাচ কোচ জানিয়ে দিয়েছিলেন, সুয়ারেস তার পরিকল্পনায় নেই। এজন্য শুরুতে একা একা অনুশীলন করেছেন মেসির প্রিয় সতীর্থ। বার্সা যদি ডিপে কিংবা মার্তিনেসকে কিনতে ব্যর্থ হয়, সেক্ষেত্রে বাধ্য হয়েই সুয়ারেসের ওপর ভরসা করতে হবে কোম্যানকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ