Wednesday, September 16th, 2020




যৌতুক না দেয়ায় নির্যাতনে গৃহবধূর মৃত্যুতে মহিলা পরিষদের ক্ষোভ

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার তারাগুনিয়া এলাকায় যৌতুক না দেয়ায় নির্যাতনে এক গৃহবধূর মৃত্যুর ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ। এ ঘটনায় যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) মহিলা পরিষদের সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেম এবং সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু স্বাক্ষরিত যৌথ বিবৃতিতে এ দাবি জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার কামিরহাটের মহিবুল আলমের মেয়ে। তার সঙ্গে চার বছর আগে একই উপজেলার তারাগুনিয়া এলাকার জিন্না মোল্লার ছেলে এজাজ আহমেদ বাপ্পির বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই স্বামী বাপ্পি ও শাশুড়ি কোহিনুর যৌতুক হিসেবে মোটরসাইকেল দাবি করেন। গৃহবধূকে উঠতে-বসতেই প্রায় প্রতিদিনই নানা ধরনের কটূ কথা শুনতে ও নানা ধরনের শারীরিক-মানসিক নির্যাতন সহ্য করতে হতো।

‘এরই ধারাবাহিকতায় গত ১ সেপ্টেম্বর স্বামী ও শাশুড়ির নির্যাতনে গুরুতর আহত হন সেই গৃহবধূ। স্থানীয় লোকজন সেই গৃহবধূকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ২ সেপ্টেম্বর তাকে চিকিৎসকের পরামর্শে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সকালে মারা যান ওই গৃহবধূ’- বলা হয় বিবৃতিতে।

মহিলা পরিষদ যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে নির্যাতনের ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার এবং তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তসহ অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানায় বিবৃতিতে।

একইসঙ্গে নির্যাতনের শিকার গৃহবধূর পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের জন্য অনুরোধ জানায়। এ ধরনের বর্বর ও নৈরাজ্যকর সহিংসতার ঘটনার পুনরাবৃত্তি প্রতিরোধে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার জন্য সরকার ও প্রশাসনের বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণও করে মহিলা পরিষদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ