Wednesday, July 1st, 2020




৪০তম বিসিএস থেকে কোটা বিলুপ্তি বাস্তবায়ন হবে

বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশনের (পিএসসি) চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক জানিয়েছেন, ৪০তম বিসিএস থেকে কোটা বিলুপ্তি বাস্তবায়ন হবে। তবে মঙ্গলবার চূড়ান্ত ফল প্রকাশ হওয়া ৩৮তম বিসিএসের নিয়োগে আগের সিদ্ধান্ত বহাল রয়েছে।

আজ বুধবার গণমাধ্যমকে তিনি এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, কোটার বিষয়ে কী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে তা ৪০তম বিসিএস পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তিতে স্পষ্ট করে উল্লেখ করেছি। সেখানে বলা হয়েছে যে ৪০তম বিসিএস পরীক্ষায় কোটার বিষয়ে সরকারের সর্বশেষ সিদ্ধান্ত অনুসরণ করা হবে। সরকার যদি কোটা বাতিল করে, তবে সেটি কার্যকর করা হবে। সে ক্ষেত্রে মেধার ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে।

পিএসসি সূত্রে জানা যায়, ইতিমধ্যে ৪০তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা শেষ হলে তার ফল প্রকাশের পর লিখিত পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে। লিখিত পরীক্ষার খাতা মূল্যায়নের কাজ শুরু করেছে পিএসসি। এই বিসিএসের লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেওয়া প্রায় ২০ হাজার প্রার্থী এখন ফলের অপেক্ষায় আছেন।

জানা গেছে, ৪০তম বিসিএসে মোট এক হাজার ৯০৩ জনকে নিয়োগের সুপারিশ করবে পিএসসি। এর মাধ্যমে প্রশাসন ক্যাডারে ২০০, পুলিশে ৭২, পররাষ্ট্রে ২৫, কর ২৪, শুল্ক আবগারিতে ৩২ ও শিক্ষা ক্যাডারে প্রায় ৮০০ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। তবে এই সংখ্যা আরো বাড়তে পারে।

গতকাল মঙ্গলবার ৩৮তম বিসিএস পরীক্ষার চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করে সরকারি কর্মকমিশন (পিএসসি)। এতে বিভিন্ন ক্যাডারে দুই হাজার ২০৪ জনকে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছে।

এর আগে ২০১৯ সালের ৩০ এপ্রিল চিকিৎসক নিয়োগে ৩৯তম বিসিএসের (স্পেশাল) ফল প্রকাশ ও নিয়োগ কার্যক্রম শেষ হয় বিদ্যমান কোটাপদ্ধতিতেই। বেশ কয়েকবার এই কোটাব্যবস্থার পরিবর্তন করে সর্বশেষ ৫৫ শতাংশের কোটা করা হয়। এর মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা কোটা ৩০ শতাংশ, জেলাভিত্তিক কোটা ১০ শতাংশ, নারীদের জন্য ১০ শতাংশ এবং ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জন্য ৫ শতাংশ কোটা ছিল। পরে ১ শতাংশ কোটা প্রতিবন্ধীদের জন্যও নির্ধারণ করা হয়।

এর আগে ২০১৯ সালের ৩০ এপ্রিল চিকিৎসক নিয়োগে ৩৯তম বিসিএসের (স্পেশাল) ফল প্রকাশ ও নিয়োগ কার্যক্রম শেষ হয় বিদ্যমান কোটাপদ্ধতিতেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ