Saturday, May 16th, 2020




সিলেটে সব মার্কেট বন্ধ, ঈদবাজার নেই

অবশেষে জনস্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে সিলেট নগরীর বন্দরবাজারস্থ হাসান মার্কেট ও লালদীঘি হকার্স মার্কেট। গতকাল মার্কেট দুটি খোলেনি। সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর আহ্বানে সাড়া দিয়ে মার্কেটের ব্যবসায়ীরা গতকাল মার্কেটের দোকানপাট খোলা থেকে বিরত থাকেন। এই মার্কেট দুটি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সিলেট নগরীর সব মার্কেট বন্ধ হলো। ফলে সিলেটে ঈদবাজারের আর কোনো সুযোগ থাকল না। মার্কেটগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়ায় করোনাভাইরাস সংক্রমণের এই কঠিন সময়ে স্বস্তি ফিরেছে জনমনে। ঈদে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও মার্কেট খোলার অনুমতি দেয় সরকার। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে জনস্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করে সিলেটে মার্কেট না খোলার দাবি জানান সাধারণ মানুষ। এই দাবির প্রেক্ষিতে গত ৮ মে সিলেটের মার্কেট মালিক সমিতি ও ব্যবসায়ী নেতাদের নিয়ে বৈঠক ডাকেন সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

ওই বৈঠকে ব্যবসায়ীরা সিলেটের সাধারণ মানুষ ও ক্রেতা-বিক্রেতাদের স্বাস্থ্যঝুঁকির কথা চিন্তা করে সব ধরনের মার্কেট ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ছাড়া বাকি সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার ঘোষণা দেন। নিজেদের ক্ষতি স্বীকার করেও বৃহৎ স্বার্থে তারা ঈদের আগ পর্যন্ত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও মার্কেট বন্ধ রাখতে মেয়রকে প্রতিশ্রুতি দেন। ব্যবসায়ীদের এই ঘোষণা প্রশংসা কুড়ায় নগরবাসীর কাছে।

কিন্তু এই প্রতিশ্রুতির তিন দিন পরই অর্থাৎ গত মঙ্গলবার থেকে সিলেটের বন্দরবাজারস্থ হাসান মার্কেট ও লালদীঘি হকার্স মার্কেট খুলে বসেন ব্যবসায়ীরা। এ দুটি মার্কেটের মধ্যে হাসান মার্কেট মধ্যবিত্ত ও লালদীঘি হকার্স মার্কেট নিন্ম আয়ের মানুষের মার্কেট হিসেবেই পরিচিত। মার্কেট দুটি খোলার পর থেকেই লেগে যায় ভিড়। সিলেট শহর ও বিভিন্ন উপজেলা থেকে লকডাউন ভেঙে আসতে শুরু করেন ক্রেতারা। একতলা মার্কেট দুটির ভিতরের গলি অপ্রশস্ত হওয়ায় কোনোভাবেই ক্রেতা-বিক্রেতারা সামাজিক দূরত্ব বা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা সম্ভব হচ্ছিল না। এর মধ্যে দুই মার্কেটের কয়েকজন ব্যবসায়ীর করোনা পজেটিভও ধরা পড়ে। সব মিলিয়ে সিলেট নগরবাসীর কাছে মার্কেট দুটি আতঙ্ক হয়ে দাঁড়ায়। সিটি করপোরেশনের মালিকানাধীন মার্কেট দুটি বন্ধ রাখতে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর কাছে দাবি জানান অনেকেই। নগরবাসীর নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে বৃহস্পতিবার রাতে দুই মার্কেটের ব্যবসায়ীদের মার্কেটের দোকানপাট বন্ধ রাখতে পুনরায় আহ্বান জানান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। তার আহ্বানে সাড়া দিয়ে দুই মার্কেটের ব্যবসায়ীরা গতকাল শুক্রবার থেকে মার্কেট বন্ধ রেখেছেন।

সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী জানান, জনস্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করে ব্যবসায়ীরা সিলেটের সব মার্কেট বন্ধ রেখেছেন। হাসান মার্কেট ও লালদীঘি হকার্স মার্কেটের ব্যবসায়ীরা তাদের দোকান খুলেছিলেন। বুঝিয়ে বলার পর তারাও বন্ধ করে দিয়েছেন। ঈদের আগ পর্যন্ত তারা মার্কেট না খোলার অঙ্গীকার করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ