Friday, August 2nd, 2019




ডেঙ্গু প্রতিরোধে আমাদের করণীয়

দেশব্যাপী ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া জনিত ভাইরাস জ্বরের সংক্রমন দেখা দিয়েছে।ডেঙ্গু একটি ভাইরাস জনিত জ্বর যা এডিস মশার মাধ্যমে ছড়ায়। এই মশা সাধারণতঃ ভোরবেলা ও সন্ধ্যার পূর্বে কামড়ায় ।বর্ষার সময় এ রোগের প্রকোপ বাড়ে । ডেঙ্গু প্রতিরোধের কোন টিকা নেই ব্যক্তিগত সচেতনতাই এই ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধের প্রধান উপায়। সাধারণ চিকিৎসাতেই ডেঙ্গু জ্বর সেরে যায়। তাই আসুন সকলে মিলে সচেতন হই এবং এডিস মশার বংশ বৃদ্ধি রোধের মাধ্যমে ডেঙ্গু ও চিকনগুনিয়া রোগ প্রতিরোধ করি।

ডেঙ্গু প্রতিরোধে আমাদের করণীয়
১। আপনার ঘরে এবং আশেপাশে যে কোন পাত্রে বা জায়গায় জমে থাকা পানি তিনদিন পর পর ফেলে দিলে এডিস মশার লার্ভা মরে যাবে।
২। বাড়ীতে ব্যবহৃত ফুলের টব, প্লাষ্টিকের পাত্র, পরিত্যক্ত টায়ার, প্লাষ্টিকের ড্রাম, মাটির পাত্র, বালতি, টিনের কৌটা, ডাবের খােসা/নারিকেলের মালা, কন্টেইনার, মটকা, ব্যাটারী শেল ইত্যাদিতে পানি জমার ফলে এডিস মশা ডিম পাড়ে।
তাই এ সকল জিনিসের মধ্যে যাতে পানি জমে এডিস মশা ডিম পাড়তে না পারে সে ব্যবস্থা নিতে হবে।
৩। ব্যবহৃত পাত্রের গায়ে লেগে থাকা মশার ডিম অপসারণে পাত্রটি ঘষে ঘষে পরিষ্কার করতে হবে।
৪। অব্যবহৃত পানির পাত্র ধ্বংস অথবা উল্টে রাখতে হবে যাতে পানি না জমে।
৫। মশার কামড় থেকে সুরক্ষাই ডেঙ্গু থেকে বাঁচার সবচেয়ে ভালো উপায় । তাই শরীরের বেশীর ভাগ অংশ ঢেকে রাখতে হবে (যেমন ফুল হাতা শার্ট এবং ফুল প্যান্ট পরা)।
ঘরের জানালায় নেট লাগানাে, প্রয়োজন ছাড়া দরজা-জানালা খােলা রাখা, ঘুমানোর সময় মশারি ব্যবহার করা, শরীরে মশা প্রতিরোধক ক্রিম ব্যবহার করার মাধ্যমে এডিস মশার কামড় থেকে বাঁচা যায়।

“তাই সকলের নিকট আবেদন আসুন সকলে মিলে সচেতন হই,
এবং এডিস মশার বংশ বৃদ্ধি রোধের মাধ্যমে ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধ করি।”

সেবা নিন, সুস্থ থাকুন।
ডেঙ্গু হলে নিকটস্থ স্বাস্থ্য কেন্দ্র যোগাযোগ করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ